শিক্ষার্থীর ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী শেখানো

আমাদের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রমে দেখা যায় আমরা গ্রুপ ভিত্তিক ক্লাসে পড়াশোনা করি । স্কুল এবং কোচিং এ একটি ক্লাসে ৪০ থেকে ৫০ এমনকি এর চেয়েও অনেক বেশি শিক্ষার্থী থাকে। ঐ ক্লাসে একজন শিক্ষক পাঠদান করে থাকেন । অনেক সময় এমন অনেক শিক্ষার্থী থাকে যাদেরকে শিক্ষক ঠিকমত চিনেন না । ফলে নিজ দায়ত্বে যারা পড়াশোনা করেন কেবল মাত্র তারাই ভালো করেন বাকিরা গোল্লায় যান । এই ভুল পদ্ধতি থেকে বেরিয়ে আসা উচিৎ । 

প্রত্যেকটি  শিক্ষার্থীদের শেখার এবং বুঝার ধরণ ভিন্ন । দেখবেন অনেক সময় একটি পরিবারের সবাই সমান মেধার অধিকারী হয়না তবুও একই পরিবার থেকে সবাই পড়াশোনায় খুব ভালো করে । প্রশ্ন হচ্ছে এটা কেন হয় ? আসলে এখানে যে বিষয়টি কাজ করে তাহলো শেখানোর কৌশল । একই পদ্ধতিতে সবাই খুব ভালো বুঝবে এমনটি নয় । তাই শিক্ষার্থীর বুঝার এবং ধারণ ক্ষমতার উপর নির্ভর করে শেখানোর কৌশল পরিবর্তন করা প্রয়োজন । এতে সবারই ভালো করা সুযোগ সৃষ্টি হয় । এর জন্য প্রয়োজন একজন অভিজ্ঞ এবং বিচক্ষণ টিউটর বা শিক্ষক যিনি তার শিক্ষার্থীর দুর্বলতাগুলো খুব সহজে চিহ্নিত করে সে অনুযায়ী শেখানোর কৌশল প্রয়োগ করতে পারবেন ।

লার্নটাইম উপরোক্ত বিষয়গুলো সামনে রেখে সারা দেশ থেকে বাঁচাই করে দেশের সেরা শিক্ষকদের নিয়ে একটি শক্তিশালী শিক্ষক প্যানেল গঠন করেছে । আমাদের প্রত্যেক শিক্ষক পেশাদারিত্বের মাধ্যমে তাদের স্বকীয় শিখন পদ্ধতির মাধ্যমে লার্নটাইমের স্বনাম অক্ষুণ্ণ রেখেছে। লার্নটাইমের রিসার্চ এন্ড মনিটরিং সিস্টেম টিউটরিং শিক্ষা কার্যক্রমকে নিয়েগেছে অনন্য উচ্চতায়।    

0 Shares:
Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You May Also Like
Read More

তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষতা অর্জন  

আধুনিক সভ্যতার এই বিশ্বায়নের যুগে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার সর্বত্র। শিল্প বিপ্লবের পর তথ্যপ্রযুক্তিতে দ্রুত  উন্নয়ন  লাভ পৃথিবীতে সবচেয়ে…
Read More

পড়ালেখায় মনোযোগী হওয়ার নয়টি উপায় 

আমরা যারা পড়াশোনা করি অর্থাৎ শিক্ষার্থী তাদের সিংহভাগ মানুষের একটি সাধারণ সমস্যা হলো পড়াশোনায় মন বসেনা। পড়াশোনায় মন…