পার্সনালাইজড এডুকেশন 

পার্সনালাইজড এডুকেশন কী ?

পার্সনালাইজড এডুকেশন হল প্রত্যেক  শিক্ষার্থীর বুঝার এবং  ধারণ ক্ষমতার উপর ভিত্তি করে শিক্ষা প্রদান কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মডেল। এই মডেলের আওতায় শিক্ষার্থীরা নিজেদের শেখার উপর দখল নিতে সক্ষম হয় । তারা তাদের মেন্টরের সহায়তায় নিজেদের দুর্বলতাগুলো বুঝতে পারে এবং এই দুর্বলতাগুলো কীভাবে কাটিয়ে উঠা যাবে তার উপর সঠিক গাইডলাইন পেয়ে থাকে । মেন্টরগণ আলাদা আলাদা ভাবে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর উপর গবেষণা করে তাদের দুর্বলতাগুলো চিহ্নিত করে সে অনুযায়ী গাইডলাইন প্রদান করে থাকেন । এই মডেলে গ্রুপ ভিত্তিক নয় বরং একক ভাবে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর আলাদা আলাদা যত্ন নেওয়া হয় । 

পার্সনালাইজড এডুকেশন ও সনাতন পদ্ধতির শিক্ষাদান মডেল 

পার্সনালাইজড এডুকেশন কী তা আপনারা ইতোমধ্যে বুঝেগিয়েছেন তবে সনাতন পদ্ধতির কথা এখনো আলোচনা করা হয়নি । সনাতন পদ্ধতির শিক্ষাদান মডেল  বলতে সুনির্দিষ্ট একটি সিলেবাস বা মডিউলের ভিত্তিতে সকল ক্যাটাগরির শিক্ষার্থীকে একই প্রকার শিক্ষা প্রদান করার পদ্ধতিকে বুঝায় । এর প্রকৃষ্ট উদাহরণ হল  স্কুল – কলেজের শিক্ষা দান কার্যক্রম । স্কুল এবং কলেজগুলোতে সকল ক্যাটাগরির শিক্ষার্থীকে একই পদ্ধতিতে পাঠদান করা হয় । তাছাড়া সেখানে ধরেই নেওয়া হয় যে শিক্ষার্থীরা বাড়িতে সবকিছু শিখে নিবে । তবে বর্তমানে এই পদ্ধতির কিছুটা পরিবর্তন ঘটিয়ে ক্লাস রুমে শিক্ষার্থীদের পার্সনালাইজড শিক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে । কিন্তু  একজন শিক্ষক দিয়ে একই সাথে বিশ বা তার বেশি শিক্ষার্থীকে পার্সনালাইজড এডুকেশন পদ্ধতির আওতায় আনা খুবই কষ্ট সাধ্য ব্যাপার । এর জন্য বিকল্প কোন ব্যবস্তাপনার প্রয়োজন রয়েছে । 

লার্নটাইম কেন পার্সনালাইজড এডুকেশন নিয়ে কাজ করে ? 

আগামী বিশ্ব পার্সনালাইজড এডুকেশন পদ্ধতির উপর বেশি নির্ভরশীল হয়ে যাবে । উন্নত বিশ্বের দেশগুলো এই পদ্ধতিতে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে অনেক আগে থেকেই । আমাদের মত উন্নয়নশীল বা অনুন্নত দেশগুলো এখনো এই পদ্ধতির দিকে বিশেষ কোন দৃষ্টিপাত করছেনা। যে কারণে আমরা আমাদের শিক্ষার সুফল আশানুরূপ হারে পাচ্ছিনা । লার্নটাইম বাংলাদেশীদের মধ্যে পার্সনালাইজড এডুকেশন পদ্ধতিকে জনপ্রিয় করার মাধ্যমে এদেশের শিক্ষা কার্যক্রমে নতুন মাত্রা সংযোজন করতে বদ্ধপরিকর ।

লার্নটাইম কর্তৃক পরিচালিত পার্সনালাইজড এডুকেশন মডেলের ধরণ 

লার্নটাইম অনলাইনে ওয়ান টু ওয়ান পদ্ধতিতে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে । একজন শিক্ষার্থীর জন্য একজন শিক্ষক বা মেন্টর নিয়োগ দেওয়া হয় । মেন্টর  প্রত্যেক শিক্ষার্থীর বুঝার ধরণ এবং ধারণ ক্ষমতার উপর নির্ভর করে পাঠদান করে থাকেন । শিক্ষার্থীদের দুর্বলতাগুলো চিহ্নিত করে সে অনুযায়ী ট্রিট করে থাকেন । শিক্ষার্থীরা সহজে তাদের সমস্যার কথা মেন্টরের কাছে শেয়ার করতে পারেন এবং মেন্টর তা সমাধান করার চেষ্টা করেন । এই মডেলটি বাস্তবায়নে সেরা শিক্ষকদের নিয়ে শক্তিশালী একটি শিক্ষক প্যানেল গঠন করা হয়েছে এবং এর পিছনে লার্নটাইমের বিশাল একটি টিম কাজ করছে । 

0 Shares:
Leave a Reply

Your email address will not be published.

You May Also Like
Read More

লার্নটাইমের অনলাইন ক্লাসগুলো থেকে যেভাবে শিখবেন 

আপনারা জানেন লার্নটাইম অনলাইনে  ওয়ান টু ওয়ান পদ্ধতিতে শিখিয়ে তাকে । যেখানে একজন শিক্ষার্থীর জন্য একজন শিক্ষক থাকেন…
Read More

অল্প সময়ের মধ্যে লার্নটাইমের সাফল্য অর্জনের কারণ

লার্নটাইম ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে মাত্র দুই বছরের ব্যবধানে বিশ্বের ১৫ টি দেশে তাদের কার্যক্রম পৌঁছে দিয়েছে।…